ডা. জাহানারা ফেরদৌস খান ঝুমুর সাথে সাক্ষাতকারের ভিত্তিতে লিখেছেন মাইশা তারান্নুম ইকবাল
বছরের এ সময়ে সূর্যের আলোতে তীব্রতা থাকে সবচেয়ে কম। হিমেল হাওয়ায় গরম কফিতে চুমুক দিতে দিতে বইয়ের মাঝে তাই দেই ডুব; রাতে খেলি ব্যাডমিন্টন, কিংবা মেতে উঠি বার-বি-কিউ পার্টিতে। কিন্তু এর মাঝেই ত্বকে হানা দেয় শীতের শুষ্কতা! ইনডোর-আউটডোর বিভিন্ন উৎসবের বাইরেও শীতকালীন আবহাওয়া ত্বকের জন্য বয়ে আনে বেশ কিছু জটিলতা। একটুখানি সচেতন পরিচর্যা ও যত্নআত্তি করলেই কিন্তু ত্বকের সজীবতা, কোমলতা ধরে রাখা সম্ভব।

সেই ২০০৪ সাল থেকে ডা. জাহানারা ফেরদৌস খান ঝুমুর লেজার মেডিকেল সেন্টার, ত্বকের যত্নে অনন্য একটি নাম। ঝুমু খান বলেন, “নিজের ত্বক নিয়ে যথেচ্ছাচার করবেন না। ত্বকের ধরন ও আবহাওয়া অনুযায়ী চিকিৎসা নেওয়াই উচিত।”

শীতের রুক্ষ আবহাওয়ায় ত্বকের সমস্যার ধরনগুলোর ত্বকের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের ওপর নির্ভর করে। তার মতে, শীতকাল তৈলাক্ত ত্বকের জন্য উপযোগী। কেননা, শীতে এ ধরনের ত্বকের স্বাভাবিক আদ্রতা বজায় থাকে। কিন্তু শীতের রুক্ষ আবহাওয়ায় শুষ্ক ত্বকে দাগসহ নানা রকম প্রদাহ দেখা দেয়। তিনি বলেন, “রুক্ষ আবহাওয়ায় প্রদাহ এড়াতে এ সময় নিয়ম করে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে, যাতে ত্বকের আদ্রতা বজায় থাকে। এজন্যই শুষ্ক ত্বকের চিকিৎসায়ও এ সময় আমরা ময়েশ্চারাইজারকে প্রাধান্য দেই।”

উন্নতমানের প্রসাধনগুলো ত্বকের জন্য বেশ কার্যকরী হলেও ঝুমু মনে করেন ভারসাম্যপূর্ণ জীবনযাপন, সুস্থ্য ও উজ্জ্বল ত্বকের পূর্বশর্ত। তার মতে, “আমাদের জীবনশৈলী অনিয়মের জালে বন্দি। খাবার খাই অস্বাস্থ্যকর, ঘুমাতে যাই রাত ৩টায়; এ ধরনের স্বভাবগুলোই আমাদের সুস্থ্য ত্বকের প্রধান অন্তরায়।” ঝুমু খান জোর দিয়ে বলেন, “বাইরের মতো ত্বকের ভেতরের অংশও সমান গুরুত্বপূর্ণ। তাই, বাজারের যেনতেন একটা পণ্য ব্যবহার করা একেবারেই অনুচিত। প্রসাধনের পাশাপাশি উজ্জ্বল ত্বকের জন্য সুস্থ্য জীবনযাপন করা জরুরি। মনে রাখতে হবে- আর্লি টু বেড, আর্লি টু রাইজ।”

শুষ্ক ত্বকের অনেক ধরনের সমস্যা যেমন আছে, তেমনি আছে হরেক সমাধানও। ঝুমু খান তাই জোর দিয়ে থাকেন ভ্যাসলিন ব্যবহারের ওপর। তার যুক্তি, “শীতকালে ভ্যাসলিন ব্যবহার করা একটি ভালো অভ্যাস”। শুধু ময়েশ্চারাইজার হিসেবে নয়, শীতের দাপটে ত্বক থেকে পানির হারিয়ে যাওয়াও ঠেকায় ভ্যাসলিন। ব্রণ সমস্যায় ভুক্তভোগীদের ক্ষেত্রেও অবস্থার উন্নতি ঘটাতে সাহায্য করে ভ্যাসলিন।”
সর্বোপরি ডা. ঝুমু খান গুরুত্ব দিতে চান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ওপর। তার মতে, ত্বকের সমস্যা অর্ধেক কমে যাবে যদি আপনি পরিচ্ছন্ন থাকেন এবং নিজের যত্ন নেন। তিনি বলেন, “সতেজ খাবার খান, চাপ মুক্ত থাকুন, এবং প্রতিদিন গোসল করুন। ফলাফলটা আপনি হাতেনাতেই পাবেন।”

ছবিঃ সাকিব মুহতাসিম