উবার কতটা নিরাপদ?

অফিস কিংবা বাসা; যেখান থেকেই বের হন না কেন, গন্তব্যে পৌঁছাতে একটা গাড়ি পেতে মাথায় একটা দুশ্চিন্তা, খানিকটা ভয় কাজ করে। আপাত অসমাধানযাত্রার সে সংকট থেকে ঢাকাবাসীকে একটা যুতসই সমাধান দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক রাইড শেয়ারিং কোম্পানি উবার। গেল এক বছরেরও বেশি সময় ধরে তারা ঢাকাবাসীকে পরিবহন সেবা দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু শুধু গাড়ি পেলেই তো সব কিছু নিশ্চিত হয় না। প্রশ্ন থাকে পরিবহন সেবাটা কতটুকু নিরাপদ এবং কতটা সেবা গ্রহীতা বান্ধব সেটা নিয়েও। আসুন দেখা নেওয়া যাক, উবার আদপে কতটা নিরাপদ?

জরুরি সহায়তা

যে কোনো সময় যে কোনো স্থানে জরুরি পরিস্থিতি দেখা দিতে পারে। বিঘ্নিত হতে পারে আপনার নিরাপত্তা, এমনকি আপনার জীবন নিয়ে দেখা দিতে পারে সংশয়। যদি উবারে থাকাকালীন সময়েই ঘটে এ ধরনের ঘটনা, তবে কি করবেন? আপদকালীন সমাধান আপনার হাতেই রয়েছে।  হাতে থাকা মোবাইল ফোনের উবার অ্যাপসের ইমার্জেন্সি বাটন চাপুন, আপনার সামনে ভেসে উঠবে পুলিশকে ফোন করার একটি অপশন। এর পাশাপাশি দুর্ঘটনায় তড়িৎ সাড়া দিতেও উবার অ্যাকসিডেন্ট রেসপন্স টিম ২৪ ঘন্টা আপনার পাশে রয়েছে।

যাত্রা পথের তথ্য

‘শেয়ার স্ট্যাটাস’র মাধ্যমে আপনি আপনার যাত্রা পথের বিস্তারিত তথ্য শেয়ার করতে পারবেন। এতে বন্ধু-বান্ধব ও পরিবার যাত্রাপথে আপনার অবস্থান সম্পর্কে সব সময় আপ-টু-ডেট থাকতে পারবেন। এমনকি আপনিও জানতে পারবেন কখন, কোথায় অবস্থান করছেন এবং আপনার গাড়ি চালক সঠিক পথ ধরে গন্তব্যের দিকে এগোচ্ছে কিনা।

চোখ থাকে প্রতিটি রাইডে

উবার প্রতিনিয়ত প্রতিটি রাইডে গাড়ি চালকদের গতিবিধিতে চোখ রাখে। অতিরিক্ত জোরে গাড়ি চালাতে, খুব জোরে ব্রেক কষলে, কিনবা অযথাই ফোনে কথা বলাসহ বিবিধ নিয়ম ভঙ্গ করলে চালককে সর্তক করে উবার ।

তড়িৎ সাড়া

চালক বিপদজনক কোনো কাজ, কিংবা যাত্রীর সঙ্গে অসদাচরণ করলে সঙ্গে সঙ্গে উবারকে জানান। উবারের র‌্যাপিড রেসপন্স টিম চালকের অ্যাকাউন্ট তাৎক্ষণিকভাবে স্থগিত করাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। পাশাপাশি তারা পুরো বিষয়টি সম্পর্কে যথা সম্ভব দ্রুত সময়ে তদন্ত করে দেখবে। এমনকি যাত্রীরাও যদি কোনো বিপদজনক কাজ কিংবা ব্যবহার করে  সেক্ষেত্রে একই ব্যবস্থা নিয়ে থাকে উবার।

রিয়েল টাইম আইডি চেক

প্রিয় কোনো মানুষকে গাড়িতে উঠিয়ে দেওয়ার পর অনেকে গাড়ির নাম্বার টুকে রাখেন। কেউবা আবার রাতে গাড়িতে ‍ওঠার আগে সে গাড়ির নাম্বার দেখে নিয়ে আপন মানুষদের জানিয়ে রাখেন। অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবাগুলোতে আপনাকে অত কষ্ট করতে হবে না। আপনার অনুরোধ গ্রহন করার পর আপনার মোবাইলে পাঠিয়ে দেওয়া হয় গাড়ি চালকের নাম, ছবি, ও রেটিং পয়েন্ট, এবং গাড়ির নাম্বার। গাড়িতে পা দেওয়ার আগেই তথ্যগুলো সঠিকভাবে মিলিয়ে নিন, বিশেষত ড্রাইভারের ছবি। আপনি কি আদৌ তা করেন? নাকি তাড়াহুড়োতে ভুলে যান?

শুধু উবার নিয়ে কথা বললেও রাইড শেয়ারি প্রায় সবগুলো কোম্পানি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে অনেকটাই একই ধরনের সেবা দিয়ে থাকে, কেবল ধরন-ধারণটা হয় আলাদা। তবে আপনার নিরাপত্তার প্রথম পদক্ষেপ আপনাকেই নিতে হবে। নিরাপত্তা সম্পর্কিত বিষয়গুলো ভালোভাবে জানুন, এবং মনে রাখুন। উদ্ভুত বিরূপ পরিস্থিতিতে দিশেহারা হবেন না, মাথা ঠাণ্ডা রাখুন। হাতের কাছে থাকা নিরাপত্তা সম্পর্কিত বিষয়গুলোতে সঠিক সিদ্ধান্ত নিন। আপনার যাত্রাপথ সব সময় শুভ হোক।

mm
Mohammed Faisal Haidere

Mohammed Faisal Haidere is an avid reader and likes to follow issues of public interest both national and beyond border.