ব্যাট ফ্যামিলি!

ডিসি কমিক্স ফ্যানদের কাছে ব্যাটম্যান একটি অতি পরিচিত নাম। শুধু ডিসি ফ্যানই নয়, কমিক ভালোবাসলে ব্যাটম্যান চরিত্রটি পছন্দ না করার কোন কারণ নেই। কিন্তু ব্যাটম্যান কি সবকিছুই একা করেছেন? একদম না। ব্যাটফ্যামিলি নামের একটি দলের সাহায্য সবসময় তার সাথে ছিলো।। নামের মাঝে ‘ফ্যামিলি’ থাকলেও আদতে এটি কোন পরিবার নয়। গোথাম শহরের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে নিজের ক্রুসেডকে সফল করতে ব্যাটম্যান নিজের একটি আর্মি তৈরি করে। কিন্তু শুধুই সন্ত্রাস দমনে সম্পর্কগুলো থেমে থাকে না, নিজেদের একত্রে একটি পরিবারের মতো ভাবতে শুরু করে তারা। এই নিয়েই ব্যাটফ্যামিলি। ব্যাটফ্যামিলি একদিনে তৈরি হয়নি। কমিক্সের গল্প ধরে আস্তে আস্তে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন চরিত্র এই ব্যাটফ্যামিলির অংশ ছিলো। অনেকে ছেড়েও গেছে এই পরিবার। তাই ব্যাটম্যান নিয়ে তো অনেক জানলেন-পড়লেন-দেখলেন, আজ বরং ব্যাটফ্যামিলির বাকিদের গল্প একটু শুনে নেয়া যাক।

গোল্ডেন এইজ

গোল্ডেন এইজ ব্যাটম্যান যুগে কমিকের ফ্রন্ট কাভার

ব্যাটম্যানের একদম শুরুর দিকের কমিক্সগুলোয় দেখা যায়, ব্যাটম্যান তখন ওয়ান ম্যান আর্মি। পাশে আর কেউ নেই। পুরো গোথাম শহরের সন্ত্রাস দমনের ভার নিজের একার মাথার উপর নিয়েছিলেন তিনি। এভাবে একাই গোল্ডেন এইজ ব্যাটম্যান যুগের বেশিরভাগটা সময় কাটাতে হয়েছে ব্রুস ওয়েনকে। তবে বব কেইন ও বিল ফিঙ্গার একসময় গল্পে কিছুটা নতুনত্ব আনার জন্য প্রথম যে চরিত্রটি নিয়ে আসেন তা আমাদের সবারই চেনা। ‘Robin, The Boy Wonder’ নামের এই চরিত্রটিই ব্যাটম্যানের প্রথম সাইডকিক। Dick Grayson তার আসল নাম।

কমিশনার জেমস গর্ডন

এই দুজনের টিম একত্রে কাজ করেছে বহুদিন। তবে, ব্যাটম্যানকে GCPD (Gotham City Police Department) এর সম্মানসূচক সদস্য করে নেয়া হলে কমিশনার গর্ডনও আস্তে আস্তে ব্যাটফ্যামিলির সদস্য হয়ে পরে।

আলফ্রেড পেনিওর্থ  -‘আলফ্রেড দ্য বাটলার”

গোল্ডেন এইজ যুগের বেশিরভাগ সময় জুড়ে ব্যাটফ্যামিলি এই ৩ জনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিলো। Alfred Pennyworth বা ‘Alfred, the Butler’ তো ছোটবেলা থেকেই ব্রুস ওয়েনের সঙ্গী। সেও ব্যাটফ্যামিলিরই অংশ হয়ে ওঠে আস্তে আস্তে। মাঠের একশনে তাকে দেখা না গেলেও, ব্যাটফ্যামিলির প্রত্যেক সদস্যের অন্যতম মানসিক ভরসার জায়গা এই বুড়ো আলফ্রেড।

ব্যাটম্যানের প্রথম সাইডকিক, ডিক গ্রেসন

সিলভার এইজ

সিলভার এইজ ব্যাটম্যান যুগের ফ্রন্ট কাভার

গোল্ডেন এইজ যুগে সব চরিত্র পুরুষ হওয়ায় বেশ সমালোচনার মুখে পরে ডিসি। সেই সমালোচনার জন্যই হোক বা নতুন এডিটর জুলিয়াস শোয়ার্টজের আইডিয়াতেই হোক, সিলভার এইজ ব্যাটম্যান এর সাথে বেশ কিছু নারী চরিত্র দেখা যায়। ক্যাথেরিন কেইন ওরফে ব্যাটওমেন চরিত্রটি এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয়। ব্যাটওমেনের সাইডকিক হিসেবে ইন্ট্রিডিউস করা হয় বেটি কেইনকে। ব্যাট-গার্ল হিসেবেই কমিক্স জগতে পরিচিত সে।

কমিকের পাতায় ব্যাটওমেন

সেই সাথে ‘ব্যাটমাইট’ এবং ‘এইস দ্য ব্যাট-হাউন্ড’ নামের আরো দুটি চরিত্রও নিয়ে আসা হয় ব্যাটফ্যামিলির মধ্যে। তবে এরা মানুষ নয়।

এইস দ্য ব্যাট হাউন্ড

তবে এই সিলভার এইজ যুগেই ব্যাট-গার্ল পালটে যায় একবার। শোয়ার্টজ নতুন করে আবার ব্যাটগার্ল চরিত্রটি তৈরি করেন। এবার কমিশনার গর্ডনের মেয়ে বারবারা গর্ডনকে নতুন ব্যাটগার্ল হিসেবে দেখানো হয়। সিলভার এইজ যুগে এরপর ব্যাটফ্যামিলিতে আর নতুন কোন মুখ দেখা যায়নি।

নতুন ব্যাটগার্ল

ব্রোঞ্জ এইজ

ব্রোঞ্জ এইজ যুগের কমিক ফ্রন্ট কভার

ব্রোঞ্জ এইজ যুগে এসে ব্যাটম্যানের গল্প কিছুটা পালটায়। ‘ব্যাটম্যান ফ্যামিলি’ আগের মতো থাকলেও, স্পটলাইটে আনার জন্য প্রায় প্রতিটি চরিত্রকেই নিজের নতুন গল্প সহ হাজির করা হয়। তারা সবাই আলাদা কাজ করা শুরু করে। ব্যাটম্যান আবার একা হয়ে যায়। রবিন ‘টিন ওয়ান্ডার’ রূপে কলেজে যায়, ব্যাটগার্লও আবার তার একাকী অভিযান শুরু করে।

সেলিনা কাইল  – ক্যাটওমেন

তবে এই পর্বেই ক্যাটওমেন ওরফে সেলিনা কাইলকে ইন্ট্রিডিউস করা হয় ব্রুস ওয়েইনের স্ত্রীরূপে। এর আগে চরিত্রটি ভিলেনরূপে থাকলেও এবার তাকে ব্যাটফ্যামিলির অংশ হিসেবেই ধরা হয়। আবার এই ব্রোঞ্জ এইজ যুগেই আমরা ব্যাটম্যান ও ক্যাটওমেন এর মেয়ে হেলেনা ওয়েইনকে দেখতে পাই। ‘হান্ট্রেস’ নাম নিয়ে সেও বাবার পথেই হাঁটা শুরু করে।

‘হান্ট্রেস’-রূপী হেলেনা ওয়েইন

তবে ব্যাটম্যানের আসল সাইডকিক রবিন না থাকায় ব্যাটফ্যালির কেমিস্ট্রিটা কোনভাবেই জমছিলো না। রবিন চরিত্রটি ‘টিন টাইটানস’ কমিক্সে এততা জনপ্রিয়তা লাভ করে যে তাকে আবার হঠাৎ করে ব্যাটম্যানের গল্পেও নিয়ে আসতে হিমশিম খাচ্ছিলো ডিসির ক্রিয়েটিভ টিম। ৮০’র শুরুর দিকে ডিক গ্রেসনকে দ্য নিউ টিন টাইটয়ানসের দলনেতা হিসেবে গল্প সাজানো হয়, যেখানে তার নাম হয় ‘নাইটউয়িং’। আর এদিকে ব্যাটম্যান ইউনিভার্সে আবার ফিরিয়ে আনা হয় রবিন চরিত্রটি। জেসন টড নামের একটি চরিত্রকে দ্বিতীয় রবিন হিসেবে দেখানো হয়।

জেসন টড, দ্বিতীয় রবিন

মডার্ন এইজ

মডার্ন এইজ ব্যাটম্যান কমিক্সের ফ্রন্ট কাভার

৮০’এর শেষের দিকে ব্যাটম্যানের স্টোরিলাইনে বেশ কিছু পরিবর্তন আসে। সুপারভিলেন জোকার খুন করে জেসন টডকে। হান্ট্রেসকে করে দেয় বিকলাঙ্গ। ‘Batman: A Lonely Place of Dying’ নামের এক ইস্যুতে টিম ড্রেইক নামের আরেকটি নতুন চরিত্র ইন্ট্রিডিউস করা হয়। এই টিম ড্রেইকই পরবর্তীতে তৃতীয় রবিন হিসেবে আত্নপ্রকাশ করে।

টিম ড্রেইক বা তৃতীয় রবিন

এরপর বেশ কিছুদিন ব্যাটফ্যামিলিতে আর কোন বড় পরিবর্তন দেখা যায়নি। ৯০’এর শুরু দিকে ‘Batman: Knightfall’ ইস্যুতে জন-পল ভ্যালি নামের একটি চরিত্র ইন্ট্রিডিউস করা হয়। যদিও সে ক্রিশ্চিয়ান কাল্ট অর্গানাইজেশন ‘অর্ডার অব সেন্ট ডুমাস’ এর একজন থাকে শুরুতে। কিন্তু ব্রুস ওয়েইন তাকে নিজের মতো করে ট্রেইন করে। Knightfall স্টোরিলাইনে বেইন যখন ব্যাটম্যানের মেরুদন্ড ভেঙে দেয়, তখন এই জন-পল ভ্যালিই কিছুদিনের জন্য হয়ে উঠে নতুন ব্যাটম্যান।

জন পল ভ্যালি

তবে ব্যাটফ্যামিলি এখানেই শেষ তা বলা যাবে না। নানান সময়ে কমিক্সের স্টোরিলাইনের প্রয়োজনে আরো কিছু চরিত্রও দেখা গিয়েছিলো ব্যাটফ্যামিলিতে। কিন্তু এই চরিত্রগুলো আলাদা করে উল্লেখযোগ্য। কেননা, এই রবিন-ক্যাটওমেন-ব্যাটগার্ল-আলফ্রেড এরা না থাকলে ব্রুস ওয়েইন কখনোই পুরোপুরি ব্যাটম্যান হয়ে উঠতে পারতো না।

আগের পর্ব – গ্রীন ল্যানটার্ন

mm
Amit Pramanik

Amit Pramanik, a learner and a traveler who loves to explore this planet through his writings.